‘আমেরিকানরাই আসল সন্ত্রাসী’

0

বস্টন ম্যারাথনে বোমা হামলায় তিনজনকে হত্যার দায়ে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার কয়েক মিনিট পরেই যোখার সারনায়েভের মা বলেছেন, তার ছেলে নয়, আসল সন্ত্রাসী আমেরিকানরাই।

সারনায়েভের সমর্থকদের উদ্দেশ্যে এক বার্তায় জুবেদাত সারনায়েভা বলেছেন, ‘ আমি এটা কখনো ভুলব না। আমার সন্তানকে যারা সহায়তা করেছেন আল্লাহ তাদের রহম করুন। আমেরিকানরাই সন্ত্রাসী এবং সবাই এটা জানে। আমার সন্তান সেরাদের সেরা।’

ভোকেটিভ ওয়েবসাইটে এই বার্তাটি পোস্ট করা হয়েছে। এছাড়া রাশিয়ার কন্টাক্টে নামের একটি সামাজিক গণমাধ্যমে ‘হেল্প ফর যোখার’ নামের সাইটেও এটি প্রকাশ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে সারনায়েভের সমর্থকদের কৃতজ্ঞতা জানান তার মা।

‘সবাইকে বলবেন যে আমি তাদের সমর্থনের কথা কখনো ভুলব না। আমার মহার্ঘ সন্তানকে সমর্থন দেয়ায় সৃষ্টিকর্তা যেন তাদের ওপর রহম করেন।’

সারনায়েভের রাশিয়ান সংশোদ্ভূত মা সবসময়ই বলে আসছেন যে তার দুই সন্তান নিরাপরাধ।

তিনি বলেছেন, ‘এই বিচার একটা প্রদর্শনী। কারণ আমেরিকানরা প্রদর্শনী ভালোবাসে।’

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের এপ্রিলে ব্যাপক বিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করে বস্টন ম্যারাথন দৌড়ে তিনজনকে এবং পরে একজন পুলিশ কর্মকর্তাকে হত্যাসহ তার বিরুদ্ধে আনা ৩০টি অভিযোগেই দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন যোখার সারনায়েভ। এই অপরাধের জন্য তার মৃত্যুদণ্ডও হতে পারে।

একুশ বছর বয়সী যোখার সারনায়েভের কি সাজা পাওয়া উচিত ম্যাসাচুসেটসের বিচারকরা আগামী সপ্তাহে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন।

প্রসিকিউটররা বলছেন, চেচেন আমেরিকান বংশোদ্ভূত সারনায়েভ এই হামলার মাধ্যমে আমেরিকাকে উচিত শিক্ষা দিতে চেয়েছিল।

বিচার কার্যক্রম চলার সময় তিনি বলেছেন, মুসলমান সম্প্রদায়ের লোকজনের সাথে আমেরিকা যে আচরণ করছে তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানাতেই এই হামলা। রায় ঘোষণার সময় তিনি ছিলেন ভাবলেশহীন।

ওই বোমা বিস্ফোরণে নিহতদের একজন ছিলেন আটবছর বয়সী মার্টিন রিচার্ড। রায় পড়ে শোনানোর পর, তার মায়ের চোখ বেয়ে অশ্রু গড়িয়ে পড়ছিল।

সারনায়েভের আইনজীবীরা ওই হামলায় তার ভূমিকার কথা স্বীকার করলেও, তারা দাবি করছেন, পুরো বিষয়টির পরিচালনা করেছে তার বড় ভাই তামেরলান সারনায়েভ, যিনি এরইমধ্যে পুলিশের গুলিতে মারা গেছেন।

বড়ভাইয়ের কারণেই উগ্রপন্থী বিশ্বাসের দিকে ঝুঁকে পড়েছিলেন তিনি। চেচেন বংশোদ্ভূত সারনায়েভ এর পরিবার প্রায় এক দশক আগে যুক্তরাষ্ট্রের পাড়ি জমান।

সূত্র: টেলিগ্রাফ, বিবিসি

Share.

Leave A Reply