ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশের পর টি-টোয়েন্টিতেও ধরাশায়ী পাকিস্তান

0

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশ করার পর একমাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচেও পাকিস্তানকে হারিয়েছে বাংলাদেশ। শুক্রবার পাকিস্তান দলকে ৭ উইকেটে হারায় টাইগাররা।

টি-টোয়েন্টিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে এটি বাংলাদেশের প্রথম জয়। এরআগে সাতটি ম্যাচ খেলে জয়শূন্য ছিল টাইগাররা।

পাকিস্তানের করা ১৪১ রান সাকিব আল হাসান ও সাব্বির রহমানের অপরাজিত জোড়া অর্ধশতকে ২২ বল এবং ৭ উইকেট হাতে রেখে টপকে যায় বাংলাদেশ। সাকিব ৪১ বলে ৫৭ ও সাব্বির ৩১ বলে ৫১ রানে অপরাজিত থাকেন।

১৪২ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারায় বাংলাদেশ। স্কোর বোর্ডে ১৭ রান উঠতেই সাজঘরে ফিরেন দুই ওপেনার সৌম্য সরকার ও তামিম ইকবাল।

কোনো বল মোকাবেলা করার আগে রানআউটের শিকার হন শেষ ওয়ানডে ম্যাচে সেঞ্চুরি করা সৌম্য সরকার। মোহাম্মদ হাফিজের করা ইনিংসের প্রথম ওভারে একটি ছক্কাসহ পরপর তিনটি বাউন্ডারি মারেন তামিম ইকবাল। শেষ বলে একটি শট রান নিতে গিয়ে আউট হন সৌম্য। সরাসরি উইকেট ভেঙে দেন সাঈদ আজমল। আর ১০ বলে ১৪ রান করে উমর গুলের বলে হাফিজের হাতে ধরা পড়েন তামিম।

সৌম্য-তামিমের পর দলীয় ৩৮ রানে সাজঘরে ফেরেন মুশফিকুর রহিমও। ১৫ বলে ১৯ রান রান করে ওয়াহাব রিয়াজের বলে বোল্ড হন মুশফিক।

এরপরই জুটি বাধেন সাকিব আল হাসান ও সাব্বির আহমেদ। শেষ পর্যন্ত ১০৫ রানের জুটি গড়ে অবিচ্ছিন্ন থাকেন তারা। ৪০ বলে ক্যারিয়ারের পঞ্চম টি-টোয়েন্টি অর্ধশতক করার পর ৪১ বলে ৫৭ রানে অপরাজিত থাকেন সাকিব। তার ইনিংসে ছিল ৯টি চারের মার।

আর ৩১ বলে ক্যারিয়ারের প্রথম টি-টোয়েন্টি অর্ধশতক(৫১) করে অপরাজিত থাকেন সাকিবের সঙ্গী সাব্বির রহমান। সাতটি চারের সঙ্গে সাব্বিরের ইনিংসে ছিল একটি ছক্কার মারও। চাপের মুখে ৫১ রানের সাহসী ইনিংস খেলে সাকিবকে ছাপিয়ে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতে নেন সাব্বির।

এরআগে প্রথম ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৪১ রান করে পাকিস্তান।

খেলা শেষে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফির হাতে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির ট্রফি তুলেন দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Share.

Leave A Reply