কনডেম থেকে সাঈদী যাচ্ছেন কয়েদি সেলে

0

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতের নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আপিল বিভাগ।

এ রায়ের ফলে কনডেম সেল থেকে সাধারণ কয়েদি সেলে চলে আসবেন সাঈদী। রায়ের কপি হাতে পেলেই এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে কারা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

কাশিমপুর কারাগার-১ এর জেলার আমজাদ হোসেন ডন এ বিষয়ে বলেন, ‘নিয়মানুযায়ী মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা কনডেম সেলে থাকেন। সাঈদী এত দিন মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে কনডেম সেলে ছিলেন। যেহেতু বুধবার থেকে তার সাজা কমিয়ে আমৃত্যু জেল দেওয়া হয়েছে, তাই তাকে কয়েদি সেলে ফেরত পাঠান হবে। তবে রায়ের কপি হাতে পেলেই এটি কার্যকর হবে।’

প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনের নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের আপিল বেঞ্চ বুধবার সকাল ১০টা ৫ মিনিটে সাঈদীর সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডের রায় ঘোষণা করেন। তার বিরুদ্ধে ১০ নম্বর অভিযোগে আমৃত্যু জেল, ১৬ ও ১৯ নম্বর অভিযোগে যাবজ্জীবন, ৭ নম্বরে অভিযোগে ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড, ৮ নম্বর অভিযোগে ১২ বছর সশ্রম কারাদণ্ড এবং ৬, ১১ ও ১৪ নম্বর অভিযোগে খালাস দেওয়া হয়েছে।

আপিল বিভাগ এ মামলায় উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ১৬ এপ্রিল যেকোনো দিন রায় ঘোষণা করা হবে মর্মে সাঈদীর মামলাটি সিএভিতে রাখেন। দীর্ঘ আট মাসে ৪৯ কার্যদিবস এ মামলার ওপর শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। রায়ের জন্য অপেক্ষমাণ রাখার সাত মাস পর বুধবার চূড়ান্ত রায় ঘোষণা করেন আদালত।

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে মানবতাবিরোধী অপরাধে দণ্ডিতদের করা আপিলের মধ্যে সাঈদীর মামলাটি দ্বিতীয় হিসেবে রায় ঘোষণা করা হল।

গেল বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি জামায়াতে ইসলামীর নায়েবে আমির দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১। ওই দিন থেকেই মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সাঈদীকে কাশিমপুর কারাগার-১ এর ৩ সম্বর সেলে (কনডেম) রাখা হয়েছে।

Share.

Leave A Reply