কেন্দ্র দখল করে জাল ভোটের মহোৎসব

0

চট্টগ্রামের বন্দর থানার বারিক মিঞা বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৫৯৫, ৫৯৬ ও ৫৯৭ কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট দিয়েছে সরকার সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাসিরের সমর্থকরা।

মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, কেন্দ্রের বাইরে হাতি মার্কার শত শত সমর্থক গেটের বাইরে, ভোট কক্ষের ভিতরে এবং বারান্দায় ঘুরাঘুরি করে।

৫৯৭ নং কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, বন্দরের এক শ্রমিক ডর্ক কার্ড দেখিয়ে ভোট প্রদান করে। এবিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ‘ভুলে জাতীয় কার্ডের পরিবর্তে বন্দরের কার্ড নিয়ে এসেছেন।’

অন্য আরেকটি কক্ষে গিয়ে দেখা যায়, পনের-বিশ জন পুরুষ ভোটার পোলিং এজেন্টের সামনে দাঁড়িয়ে হৈ-হল্লোড় করছে। তাদের কাছে জানতে চাওয়া হলে যথাক্রমে শফিকুর রহমান, হাসান ও  রিদুয়ান বলেন, ‘আধাঘণ্টা ধরে দাড়িঁয়ে থেকেও ভোট দিতে পারেননি। বলা হচ্ছে ব্যালেট পেপার শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু আমরা এখনো অনেকেই ভোট দিতে পারিনি।’

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে পোলিং এজেন্টের দায়িত্বে থাকা শর্মি দাশ এবং শারমিন আক্তার বলেন, ‘আমরা কিছু বলতে পারব না স্যার(সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার) জানেন।’

সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার মো. হাবিবুর রহমান মুন্সী বলেন, ‘ব্যালট পেপার শেষ হয়ে গেছে আবার নতুন করে পেপার আনা হয়েছে।’ আগের প্রদত্ত পেপারগুলো কীভাবে শেষ হয়েছে তার কোনো সুদোত্তর দিতে পারেননি তিনি।’

এ ছাড়াও সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আগ্রাবাদ এলাকার বেপারীপাড়া, তালাপীপাড়ায় এলাকায় বিএনপি সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থীর এজেন্টকে ভোট কেন্দ্র থেকে বের করে দেয়ার অভিযোগ তুলেন ২৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মো. সাকেন্দার। এরকমভাবে নগরীর লালখান বাজারের বার্ডস স্কুল, সল্টগোলা এলাকার বিজিএমইএ ভবন কেন্দ্র থেকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের বের করে দিয়ে ভোটকেন্দ্রের দখল নেয় সরকার সমর্থিতরা।

এম মনজুর আলমের মিডিয়া সমন্বয় টিমের সদস্য মো. আবু মূসা বাংলামেইলকে বলেন, ‘সল্টগোলা এলাকার বিজিএমইএ ভবন কেন্দ্রে এসআই শামীমের নেতৃত্বে এজেন্টদের বের করে দেয় নাসিরের সমর্থকরা। এ ছাড়াও নগরীর অর্ধেকের বেশি কেন্দ্র দখল নিয়েছে বলে জানান তিনি।

এ দিকে, নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নির্বাচন বর্জনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিএনপি নেতা আমীর খসরু।

Share.

Leave A Reply