ড. শফিউল হত্যায় সেই রেশমা গ্রেপ্তার

0

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. একেএম শফিউল ইসলাম লিলন হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে নাসরিন আক্তার রেশমাকে গ্রেপ্তার করেছে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। নগরীর মেহেরচণ্ডি এলাকা থেকে শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারি কমিশনার (এসি) ইফতেখায়ের আলাম জানান, রেশমা শিক্ষক অধ্যাপক ড. একেএম শফিউল ইসলাম লিলন হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহে আগে র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হওয়া ঠিকাদার আব্দুস সামাদ পিন্টুর স্ত্রী।

রেশমা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে সেকশন অফিসার হিসেবে কর্মরত আছেন। হত্যার কিছুদিন আগে রেশমার সঙ্গে ড. শফিউলের বাকবিতণ্ডা হয়। সেই থেকে এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে রেশমার সম্পৃক্ততা আছে বলে সন্দেহ করে আসছিলো গোয়েন্দা পুলিশ।

এর আগে, ২০১৪ সালের ১৫ নভেম্বর রাবি সংলগ্ন চৌদ্দপাই এলাকায় নিজ বাসার সামনে দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত হন সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. একেএম শফিউল ইসলাম লিলন। হত্যার দুই মাস পর হয়ে গেলেও পুলিশ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করতে ব্যর্থ হলে তদন্তের দায়িত্বভার নগর গোয়েন্দা শাখায় স্থানান্তর করা হয়েছে।

শিক্ষক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় র‌্যাব রাজশাহী ও ঢাকা থেকে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে। তারা র‌্যাবের কাছে এ হত্যার দায় স্বীকার করে। তবে নভেম্বরে ছয়জনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও আদালতে স্বীকারোক্তি দিতে অস্বীকার করে তারা। ফলে নতুন কোনো তথ্যই উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত ওই ৬ জনের মধ্যে রেশমার স্বামী আব্দুস সালাম পিন্টুও ছিলো।

এছাড়া হত্যাকাণ্ডের ৫ ঘণ্টার মাথায় আনসার আল ইসলাম বাংলাদেশ-২ নামে একটি সংগঠন ফেসবুকে একটি পেজ খুলে হত্যার দায় স্বীকার করে। এর প্রধান আবদুর রহিমকে শনাক্তের দাবি করা হলেও এখনো তিনি ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছেন।

Share.

Leave A Reply