ঢাকা ও চট্টগ্রামে গণসংবর্ধনা টাইগারদের

0

একাদশ বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম করেছে মাশরাফি বাহিনী। দেশে ফিরেই তাদের বড় পরিসরে সংবর্ধনা পাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আইসিসি প্রেসিডেন্ট পদ থেকে মুস্তফা কামালের পদত্যাগ ও বোর্ড সভাপতি দেশের বাইরে থাকায় একটু দেরি করে ফেলল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আগামী ১০ এপ্রিল চট্টগ্রামে এবং ১১ এপ্রিল ঢাকার মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে বড় পরিসরে বাংলাদেশ দলকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

অনেকগুলো ইস্যু নিয়ে রোববার বিকালে মিরপুর স্টেডিয়ামে বসেছিল বিসিবির সভা। এ সভার অন্যতম ইস্যু ছিল মাশরাফিদের সংবর্ধনার বিষয়টি। এ ব্যাপারে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘বাংলাদেশ দলের পারফরম্যান্স নিয়ে কিছু ঘোষণা। তাদের কী দেওয়া যায়। এগুলো আজকে চূড়ান্ত করলাম। আগামী ১০ তারিখে চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থাসহ আরও অনেকে বাংলাদেশকে দলকে সংবর্ধনা দেওয়ার জন্য আমাদের কাছে চিঠি দিয়েছে।

এর মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উনি আগ্রহ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ দলকে সংর্বধনা দেওয়ার জন্য। এছাড়া মোহামেডান ক্লাব, আবাহনী ক্লাব, উত্তরা ক্লাবের নতুন নির্বাহী কমিটি। বিভিন্ন জায়গা থেকে আমরা বেশকিছু প্রস্তাব পেয়েছি। যারা বাংলাদেশ দলকে সংবর্ধনা দিতে চায়। দুর্ভাগ্যবশত আমরা যে সমস্যাটা দেখছি আমাদের হাতে সময় নেই।’

তিনি আরও বলেন, ‘সামনেই পাকিস্তান সিরিজ শুরু হতে যাচ্ছে। এর মধ্যে বিসিএল শুরু হয়ে গেছে। একটা মিনিমাম যে ব্রেক দরকার খেলোয়াড়দের জন্য আমরা এটাও দিতে পারছি না। সেজন্য অনেককিছু বিবেচনা করে আমরা ঠিক করেছি ঢাকায় আমরা একটাই অনুষ্ঠান করবো। যারা যারা আমাদের চিঠি দিয়েছেন তাদের আমরা দাওয়াত দিব তোমরা এই অনুষ্ঠানে আসো। তাতে করে সবাই এক সঙ্গে এক জায়গায় দিতে পারি। এই জন্য আমরা মানিক মিয়া অ্যাভিনিউতে সংবর্ধনা দেয়া হবে বিসিবির ব্যানারে।’

ঢাকায় গণসংবর্ধনার আগে চট্টগ্রামে দেওয়া হবে আরেকটি সংবর্ধনা। এ বিষয়ে বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘কেউ যদি মনে করে সিরিজের পর আরও বড় করে দিবে তাহলে অন্য জিনিস। এই মুহৃর্তে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সমন্বয়ে গঠিত ফোরাম তারা সকলে মিলে দিতে চাচ্ছে চট্টগ্রামে। এই কারণে ১০ এপ্রিল চট্টগ্রামে এবং ১১ তারিখে ঢাকায় আমরা একটি অনুষ্ঠান করতে যাচ্ছি মানিক মিয়া এ্যাভিনিউতে, যা হবে ক্রিকেট বোর্ডের তত্ত্বাবধানে।’

Share.

Leave A Reply