বিয়ের বয়স নিয়ে তামাশা করছে সরকার

0

নারীর বিয়ের ন্যূনতম বয়স নিয়ে সরকারের পুরুষতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গির তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে বিপ্লবী নারী সংহতি।

বিপ্লবী নারী সংহতির সমন্বয়ক শ্যামলী শীল এবং সহ-সমন্বয়ক তাসলিমা আখ্তার এক প্রেস বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ-নিন্দা ও ক্ষোভ জানান।

প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়, বিপ্লবী নারী সংহতিসহ সচেতন সকল মহলের তীব্র বিরোধিতা সত্ত্বেও সরকার কর্তৃক প্রস্তাবিত বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন-২০১৪ এর খসড়ায় কৌশলে নারীদের সর্বনিম্ন বিয়ের বয়স ১৬ করার বিষয়টি পুনরায় সম্মতি দেয়া হয়েছে।

এখানে বলা হয়েছে ‘যুক্তিসংগত কারণে মা-বাবা বা আদালতের সম্মতিতে ১৬ বছর বয়সে কোনো নারী বিয়ে করলে সেই ক্ষেত্রে তিনি ‘অপরিণত বয়স্ক’ বলে গণ্য হবেন না।’ আরো বলা হয়েছে, বিয়ে ছাড়া কেউ অন্তঃস্বত্ত্বা হয়ে গেলে মা-বাবা তাকে বিয়ে দিতে পারবেন। নেতারা বলেন, এ দৃষ্টিভঙ্গির মাধ্যমে সরকার প্রকারান্তরে ধর্ষকদের পক্ষ নিচ্ছে। ধর্ষক-অপরাধীদের যথাযথ শাস্তির ব্যবস্থা না করে সরকার নারীর নিরাপত্তার নামে বিয়ের ন্যূনতম বয়স কমানোর খোঁড়া যুক্তি দিচ্ছে।

নেতারা বলেন, এ ধরনের নীতির ফলে নারীর মানুষ হিসেবে বিকাশ লাভের পথ বাধাগ্রস্ত হবে। অল্প বয়সেই মা হওয়ার স্বাস্থ্যগত ঝুঁকির মধ্যে নারীকে পড়তে হবে। এছাড়া নারীর শিক্ষা গ্রহণ ও আত্মনির্ভরশীল হওয়ার পথ রুদ্ধ হবে।

তারা বলেন, দীর্ঘদিনের নারী আন্দোলনের ফল হিসেবে নারীর বিয়ের ন্যূনতম বয়স ১৮ করা সম্ভব হয়েছিল। সরকার এ অর্জনের বিপরীতে হাঁটছে।

তাই নেতারা অবিলম্বে সরকারকে এ নীতি বাতিল করার আহ্বান জানান।

Share.

Leave A Reply