ভারতে যেতে রাজি নয় ছিটমহলের হিন্দুরাও

0

বাংলাদেশ-ভারতের স্থল সীমান্ত চুক্তি ভারতীয় পার্লামেন্টে পাস হওয়ার পরই ছিটমহলবাসীদের সঙ্গে মতবিনিময় শুরু করেছে ভারত সরকার।

রোববার সকালে কুড়িগ্রাম জেলার অন্তর্ভুক্ত ভারতীয় ছিটমহল দাশিয়ার ছড়া পরিদর্শন করেছেন ঢাকায় নিয়োজিত ভারতের রাষ্ট্রদূত পঙ্কজ শরণ। অন্যদিকে পশ্চিমবঙ্গের ভেতরে বাংলাদেশি ছিটমহলগুলোতেও সফর করছেন রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিরা।

বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ছিটমহলবাসীরা জানান, বর্তমান অবস্থানেই থাকতে চান তারা। নিজের ভিটা ছেড়ে অন্য দেশের নাগরিকত্ব নিতে আগ্রহী নন তারা।

তবে ছিটমহল বিনিময় সমন্বয় কমিটির বাংলাদেশ পক্ষের সভাপতি আলতাফ হোসেন জানান, বাংলাদেশের ভেতরে থাকা ৭০০ এর বেশি পরিবার প্রাথমিক জরিপে ভারতে যাওয়ার কথা বলেছিলেন। কিন্তু এখন তারা মত পরিবর্তন করেছেন। ছিটমহলের হিন্দুরাও এখন আর ভারতে যেতে চান না।

কমিটির ভারত পক্ষের আহ্বায়ক দীপ্তিমান সেনগুপ্ত বলেন, ভারতে থাকা বাংলাদেশিরা দেশে ফিরতে ইচ্ছুক নন। গত ৬৮ বছরে ভারতীয়দের সঙ্গে ছিটমহলবাসীদের বন্ধুত্ব ও আত্মীয়তা হয়েছে। তাই তারা এই পরিমণ্ডল ছাড়তে চান না। তাছাড়া ভারতে কর্মসংস্থানের সুযোগ বেশি থাকাটাও একটা কারণ।

তিনি জানান, বাংলাদেশে অবস্থানরত ছিটমহলবাসীদের ভারতে প্রবেশে উৎসাহী করতে ইতোমধ্যে পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সরকার। নাগরিকত্ব বেছে নেওয়ার মাপকাঠি নয়।

৩৭ হাজার ছিটমহলবাসীর কমপক্ষে ৫ শতাংশ ভারতে ফিরবেন বলে আশা প্রকাশ করেন দীপ্তিমান সেনগুপ্ত।

প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালের জুন এবং ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বরে করা ২টি সমীক্ষাতেই ছিটমহলবাসীরা বলেছিলেন, কোনো রাষ্ট্র তাদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ প্যাকেজে তাদের নাগরিকত্ব বেছে নেওয়া নির্ভর করবে না।

Share.

Leave A Reply