মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া সাকার স্ত্রী-ছেলের আত্মসমর্পণ, জামিন আবেদন

0

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের (সাকা) চৌধুরীর মামলার রায়ের খসড়া ফাঁসের মামলায় আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চেয়েছেন তার স্ত্রী ফারহাত কাদের চৌধুরী ও ছেলে হুম্মাম কাদের চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার সকালে তারা ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে আত্মসমর্পণ করে জামিন চান।

এর আগে ২৮ আগস্ট সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীর আইনজীবী ব্যারিস্টার ফখরুলসহ সাতজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয় আদালত।

আসামিদের মধ্যে সাকা চৌধুরীর স্ত্রী ও ছেলে ছাড়াও রয়েছেন- ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলামের জুনিয়র আইনজীবী মেহেদী হাসান, সাকার ম্যানেজার একেএম মাহবুবুল হাসান ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের অফিস সহকারী (সাঁটলিপিকার) ফারুক হোসেন ও পরিচ্ছন্নতাকর্মী নয়ন আলী।

অভিভুক্ত আসামিদের মধ্যে ফারহাত কাদের চৌধুরী, হুমাম কাদের চৌধুরী ও মেহেদী হাসান পলাতক ছিলেন। ব্যারিস্টার ফখরুল ইসলাম, একেএম মাহবুবুল হাসান, ফারুক হোসেন ও নয়ন আলী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে রয়েছেন। বর্তমানে পলাতক থাকলেন শুধু মেহেদী হাসান।

মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গত বছরের ১ অক্টোবর বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদেরকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন প্রথম আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। তবে রায়ের আগেই সাকার স্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্য এবং আইনজীবীরা রায় ফাঁসের অভিযোগ তোলেন।

ট্রাইব্যুনালের রেজিস্ট্রার একেএম নাসির উদ্দিন মাহমুদ বাদী হয়ে ২ অক্টোবর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে শাহবাগ থানায় একটি মামলা করেন। এতে ট্রাইব্যুনালের ফারুক ও নয়ন এবং ব্যারস্টার ফখরুলের জুনিয়র আইনজীবী মেহেদীকে আসামি করা হয়েছিল।

এছাড়া ৪ অক্টোবর ডিবি পুলিশের পরিদর্শক ফজলুর রহমান বাদী হয়ে ঢাকার শাহবাগ থানায় আরেকটি মামলা দায়ের করেছিলেন। মামলায় ওই তিনজন ছাড়া বাকিদেরও আসামি করা হয়।

Share.

Leave A Reply