লতিফের স্বাধীনতা রয়েছে, যা ইচ্ছা বলার, হাছান খুবই কর্মঠ : সাজেদা

0

আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভানেত্রী ও সংসদের উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী বলেছেন, ‘আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী ‘মুখপোড়া’ টাইপের। এজন্য হজ, তাবলীগ জামাত ও জয়কে নিয়ে এমন আপত্তিকর মন্তব্য করে ফেলেছেন।’

এ সময় তিনি বলেন, ‘আমরা এসব মুখপোড়া লোকের কথাবার্তা ধরি না। আশা করি আপনারাও তার কথায় কিছু মনে করবেন না।’

মঙ্গলবার দুপুরে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের জরুরি সভা শেষে সাংবাদিকদের সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘লতিফের স্বাধীনতা রয়েছে, যা ইচ্ছা বলার। আর মুখপোড়া টাইপের বলে প্রায়ই এমন বেফাস কথাবার্তা সে বলে। কিন্তু আমরা তার কথা গ্রহণ করি না। আশা করছি আপনারাও গ্রহণ করবেন না। কে কি বলল তাতে কান দিবেন না।’

সাজেদা বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু শেখ হাসিনাকে আমাদের মধ্যে রেখে গেছেন। আমরা তাকে দেশে নিয়ে এসেছি এবং তাকে ঘিরেই রাজনীতি করছি। আর সজীব ওয়াজেদ জয় এদেশের কে, লতিফ সিদ্দিকী না চিনলেও তাকে সবাই চেনে ও জানে।’

তিনি বলেন, ‘লাকুম দ্বীনুকুম ওয়াল ইয়া দ্বীন- যার যার ধর্ম তার তার। সামনে ঈদ ও পূজা। এই উৎসবে আমাদের কোনো ভেদাভেদ নেই। আমাদের ধর্মীয় উৎসব ঈদ। হিন্দুদের পূজা। আমরা সবাই এদেশে মিলেমিশে ঈদ ও পূজা উদযাপন করে থাকি।’

এক প্রশ্নের জবাবে সাজেদা চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- খালেদা জিয়ার হাতে রক্ত। আবার খালেদা জিয়াও বলেছেন- শেখ হাসিনার হাতে রক্ত। এমন পাল্টাপাল্টি বিষয়ে আমি কোনো মন্তব্য অতীতে করিনি, করবও না।’

এরপরই তিনি প্রশংসায় ভাসান দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদকে। মাত্রই রবিবার যাকে সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ‘স্মরণকালের শ্রেষ্ঠ বেয়াদব’ আখ্যায়িত করেছিলেন।

ধানমন্ডি ৩২ নম্বরের ওই সভায় তিনি হাছান মাহমুদ সম্পর্কে বলেন, ‘উনি কে? কী ছিলেন? আমি জানি কিভাবে উনি নেতা হয়েছেন। এই ধরনের আস্ফালন আমি আমার রাজনৈতিক জীবনে দেখিনি। এখন নতুন নতুন নেতা জন্মে বেয়াদবি শুরু করেছে।’

আর মঙ্গলবার ১৮০ ডিগ্রি উল্টে সাজেদা চৌধুরী হাছান মাহমুদকে পাশে বসিয়ে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘প্রচার ও প্রকাশনা সেলে হাছান মাহমুদ ও অসীম কুমার উকিল খুব ভাল কাজ করছে। তারা খুবই কর্মঠ। আমাকে তাদের কর্মসূচিতে ডেকেছে, এজন্য তাদের ধন্যবাদ।’

সাজেদা চৌধুরী কথা বলার সময় সেখানে আরো উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, উপ-প্রচার সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, নির্বাহী কমিটির সদস্য এসএম কামাল, সুজিৎ রায় নন্দি প্রমুখ।

Share.

Leave A Reply