লাগাতার অবরোধের পাশাপাশি বিক্ষোভের ডাক ২০-দলের

0

লাগাতার অবরোধের পাশাপাশি রবিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভের ডাক দিয়ে সংশোধিত বিবৃতি দিয়েছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোট।

জোটের পক্ষে শনিবার এক বিবৃতিতে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব বরকত উল্লাহ বুলু নতুন কর্মসূচি ঘোষণা দেন।

অবশ্য এর আগে পাঠানো এক বিবৃতিতে অবরোধ ও হরতালের বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

এতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে গ্রেপ্তারের পর বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদসহ সারাদেশে বিরোধী দলীয় গুমকৃত নেতাকর্মীদেরকে সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় তাদের পরিবারের নিকট ফেরত দেয়ার দাবিতে এবং নেতাকর্মীদের হত্যা ও গণগ্রেপ্তারের প্রতিবাদে রবিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভের ডাক দেয়া হয়।

দেশের সকল জেলা, উপজেলা, থানা, পৌরসভা ও সকল মহানগরের থানায় থানায় ২০-দলীয় জোটের উদ্যোগে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হবে বলে বিবৃতিতে বলা হয়।

বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, ‘৫ জানুয়ারি জাতির সঙ্গে প্রতারণা করে একটি প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে গায়ের জোরে রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করে মানুষের বাক-ব্যক্তি স্বাধীনতা হরণসহ জনগণের ওপর অত্যাচার-নিপীড়ণ চালানোর পাশাপাশি গণমাধ্যমের নিরপেক্ষতা কেড়ে নিয়ে দেশে এক ভয়াবহ নৈরাজ্যের সৃষ্টি করেছে ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী।’

তিনি বলেন, ‘একটি গণতান্ত্রিক দেশে বিরোধী দলগুলো কর্তৃক সভা-সমাবেশ-মিছিল করা সাংবিধানিক অধিকার হলেও তা পুরোপুরিভাবে নস্যাৎ করা হয়েছে। সরকারের অবৈধ কর্মকাণ্ড ও লুটতরাজের বিরুদ্ধে বিরোধী দলগুলো যাতে সোচ্চার হতে না পারে সেজন্যই ক্ষমতাসীনরা সিনিয়র নেতৃবৃন্দসহ হাজার হাজার নেতাকর্মীর নামে বানোয়াট মামলা দিয়ে তাদেরকে জেলে পুরে রেখেছে।’

বিএনপি মুখপাত্র বলেন, ‘যৌথবাহিনী দিয়ে দেশে চালানো হচ্ছে গ্রেপ্তার আর বন্দুকযুদ্ধের নামে বিরোধী নেতাকর্মীদেরকে হত্যার নারকীয় ঘটনা। সব মিলিয়ে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন মানবাধিকার সংস্থা বাংলাদেশের সংকটাপন্ন পরিস্থিতিতে গভীর উদ্বেগ ও উৎকন্ঠা প্রকাশ করে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- বেগম খালেদা জিয়ার ৮১ দিনের আন্দোলন ব্যর্থ হয়েছে। তিনি আরো বলেছেন- দেশের বিবেকবান মানুষ কিভাবে বিএনপিকে ভোট দেয় তা তিনি নাকি বুঝতে পারেন না।’

‘প্রধানমন্ত্রীকে সবিনয়ে বলতে চাই- আপনার দলীয় লোকদের দিয়ে সাজানো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর নির্ভরতা ছেড়ে জনগণের কাতারে দাঁড়ান, দেখতে পাবেন ৮১ দিনের আন্দোলন সফল না বিফল’ যোগ করেন বরকত উল্লাহ বুলু।

তিনি বলেন, ‘জনগণের দাবি অনুযায়ী নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থার অধীনে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা নিলেই জনগণ আন্দোলনে সফল না বিফল হয়েছে তা পরিষ্কার করে দেবে। জনগণ ভোট দেয়ার সুযোগ পেলে বিএনপি তথা ২০-দলীয় জোটের বিজয় নিশ্চিত করবে, ইনশাআল্লাহ।

Share.

Leave A Reply