সালাহ উদ্দিনকে উঠিয়ে নিয়ে গেছে যৌথবাহিনী: বিএনপি

0

বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমেদকে যৌথবাহিনী ধরে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছে দলটি।

বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম এ অভিযোগ করেন।

তিনি বলেন, ‘মঙ্গলবার রাত ১০টার পর পুলিশ, ডিবি এবং র্যািবসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ২০/৩০ জন সদস্য সালাহ উদ্দিনকে উঠিয়ে নিয়ে যায়। এ সময় ওই বাসার দুই পুরুষ ও নারী কর্মীকে আটক করে নিয়ে যায় তারা।’

নজরুল ইসলাম খান বলেন, এখন পর্যন্ত তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি। এমনকি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে তাকে গ্রেপ্তারের বিষয়টিও প্রকাশ করা হয়নি। এতে তার পরিবার এবং রাজনৈতিক সহকর্মীরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছেন।

তিনি বলেন, কয়েক দিন আগে সালাহ উদ্দিনের বাসার কেয়ারটেকার এবং দুই গাড়িচালককে বিনা ওয়ারেন্টে গ্রেপ্তারের তিন দিন পর আদালতে তোলা হয়েছিল।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, দল ও জোটের পক্ষ থেকে কর্মসূচি ঘোষণা এবং বিবৃতি প্রদান করে সরকারের বিরাগভাজন হওয়ায় সালাহ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এবং যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে গ্রেপ্তারের পর চলমান সরকার বিরোধী আন্দোলন-সংগ্রামে বিএনপিসহ ২০-দলের অন্যতম মুখপাত্র হিসেবে ভূমিকা পালন করে আসছিলেন সালাহ উদ্দিন।

সালাহ উদ্দিনসহ আটক তিনজনকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়ার জোর দাবি জানিয়ে রাজনৈতিক নেতাদের এভাবে গোপনে তুলে নিয়ে যাওয়ার অন্যায়, বেআইনি এবং স্বৈরাচারী কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান নজরুল ইসলাম খান।

এর আগে সালাহ উদ্দিন আহমেদের স্ত্রী সাবেক সংসদ সদস্য হাসিনা আহমেদ আরটিএনএন-কে বলেন, ‘মঙ্গলবার রাত ১০টার পর থেকে তার কোনো খোঁজ পাচ্ছে না, মুঠোফোনটিও বন্ধ রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘সালাউদ্দিন উত্তরার কোনো এক বাসায় ছিলেন। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোক তাকে তুলে নিয়ে যায়। ওই বাসার কাজের লোককেও বেঁধে নিয়ে যায় তারা।’

তাকে ওই বাসার কেয়ারটেকার ঘটনাটি জানিয়েছেন বলেও জানান সালাহ উদ্দিনের স্ত্রী।

Share.

Leave A Reply