হরতাল-অবরোধে ক্ষতি ৫০০০ কোটি টাকা: সিপিডি

0

রাজনৈতিক অস্থিরতায় টানা ৮১ দিনের অবরোধ ও ৬৭ দিনের হরতালে দেশের অর্থনীতির ৪,৯০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। জিডিপিতে এ ক্ষতির পরিমাণ .৫৫ শতাংশ।

হরতাল অবরোধে প্রত্যেক দিনের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত হয়েছে বলেও মত প্রকাশ করা হয়েছে।

রবিবার দুপুরে মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

সাম্প্রতিক অবরোধ-হরতালের শুরু থেকে গত ১৭ই মার্চ পর্যন্ত সময়ের ওপর সিপিডির তৈরি করা এক গবেষণা প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়।

প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন গবেষক তৌফিকুল ইসলাম খান।

প্রতিবেদনে মোট ১১টি খাতের ক্ষতির চিত্র তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে পোশাক খাতে ১৩১৮ কোটি টাকা, কৃষি খাতে ৩৯৮ কোটি টাকা, পোল্ট্রিতে ৬০৬ কোটি টাকা, ফ্রোজেন খাতে ৭৪১ কোটি টাকা, প্লাস্টিক খাতে ২৪৪ কোটি টাকা, পরিবহন খাতে ৭৪৪ কোটি টাকা, টুরিজমে ৮২৫ কোটি টাকা, ব্যাংক ও বীমায় ১৫৬ কোটি টাকা এবং খুচরা বাজারে ৪৪৮কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

অনুষ্ঠানে সংস্থাটির সম্মানিত ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, উদার বাজার অর্থনীতি গড়ে তুলতে হলে রাজনীতিতে উদারতা গড়ে তোলা দরকার। এটি না হলে ব্যক্তি বিনিয়োগ বাড়বে না। এছাড়াও অর্থনীতিতে নীতি ও প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কার দরকার। আমাদের নেতৃত্বের সক্ষমতা না থাকায় এটি সম্ভব হয়নি। এজন্য নেতৃত্বের সক্ষমতা বাড়াতে হবে।

তিনি বলেন, দেশে স্বাভাবিক কার্যক্রমে একটি অস্থিতিশীল অবস্থা রয়েছে যা সরকারের পক্ষ থেকেও অনেক সময় বলা হচ্ছে।

কার দাবি সঠিক?

হরতাল অবরোধে আসলে কত ক্ষতি হয় তা নিয়ে গত কিছুদিন ধরেই বিতর্ক চলছিল। কোনো ধরনের গবেষণা ছাড়াই ব্যবসায়ীরা বলে আসছিলেন যে প্রতিদিনের হরতাল ও অবরোধে প্রায় ২,৭০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়।

গত ৮ ফেব্রুয়ারি ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই’র সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ দাবি করেন, চলমান হরতাল-অবরোধে গত এক মাসে ৭৫,০০০ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

১১ ফেব্রুয়ারি বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম এক সভায় দাবি করেন, বিএনপি জোটের লাগাতার হরতালে এ পর্যন্ত এক লাখ ২৭ হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে।

এরপর গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি জোটের চলমান অবরোধ ও হরতালের কর্মসূচিতে ১ লাখ ২০ হাজার কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ৬ জানুয়ারি থেকে টানা অবরোধ শুরু করে ২০ দলীয় জোট। এরপর ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে প্রতিটি কর্মদিবসেই হরতাল পালন করে বিরোধী জোট।

Share.

Leave A Reply